মালয়েশিয়া কাজের ভিসা ২০২৪

মালয়েশিয়া কাজের ভিসা

মালয়েশিয়া কাজের ভিসা ২০২৪

মালয়েশিয়াতে বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ থেকে অনেক বেশি পরিমাণ মানুষ যাচ্ছেন। বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসা নিয়ে বিভিন্ন ভাবে মানুষ মালয়েশিয়াতে গমন করেছেন। মালয়েশিয়া যাবার পেছনে মানুষের একটি কারণ হলো অর্থ উপার্জন করা। এ কারণেই বর্তমান সময়ে খুব বেশি পরিমাণ মানুষ মালয়েশিয়া যাচ্ছেন।

মালয়েশিয়াতে বাংলাদেশীদের জন্য অনেক কাজ রয়েছে। যে সকল কাজগুলো করে একজন শ্রমিক ইচ্ছে করলে প্রতি মাসে বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারেন। অর্থ আয় করে নতুন ভাবে জীবন সাজাতে পারবেন। সেই উদ্দেশ্য নিয়ে অনেকেই গমন করেছেন মালয়েশিয়াতে।

আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব মালয়েশিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা জানতে পারবেন। মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে, মালয়েশিয়া যাবেন কিভাবে, মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত, মালয়েশিয়া যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয় ইত্যাদি। তো চলুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক এই সকল বিষয়গুলো সহ আরো অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে

মালয়েশিয়া যদি কেউ কাজের ভিসা নিয়ে যায় তবে তার খরচ হয় সাড়ে ৪ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা। কিছুদিন পূর্বে ও প্রায় ৪ লক্ষ থেকে সাড়ে চার লক্ষ টাকা দিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছিল। কিন্তু বর্তমান সময়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা খরচ হচ্ছে অথবা তার বেশি।


বর্তমানে মালয়েশিয়া বিভিন্ন ক্যাটাগরি ভিসা নিয়ে যাচ্ছেন অনেকেই। আপনিও যেকোনো এজেন্সির মাধ্যমে মালয়েশিয়া সাড়ে চার লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকার মধ্যে খুব সহজেই সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মালয়েশিয়া প্রবেশ করতে পারবেন। তবে আপনি যে এজেন্সির মাধ্যমে যাবেন সেই এজেন্সি সম্পর্কে সঠিকভাবে খোঁজখবর নিয়ে তবে টাকা জমা দিবেন।

মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত

বর্তমানে মালয়েশিয়া কাজ কাজ করে একজন শ্রমিক বেসিক বেতন ৩৮ থেকে ৪৫ হাজার টাকা। তবে সে যদি তার পাশাপাশি ওভারটাইম কাজ করে তাহলে সে প্রতি মাসে আয় করতে পারেন প্রায় ৫৫ হাজার টাকা বা তার বেশি

তবে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ওপর নির্ভর করে কাজের বেতন কমবেশি হয়। আবার বিভিন্ন কোম্পানির উপর নির্ভর করেও বেতন বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। আপনারা যাবার পূর্বে আপনাদের সকলের জেনে নেওয়া উচিত যে আপনি যে ক্যাটাগরির ভিসা নিয়ে যাচ্ছেন অথবা যে কোম্পানিতে কাজ করার জন্য যাচ্ছেন। সেই কোম্পানিতে কাজের বেতন কত। কেননা আপনারা সেখানে অর্থ উপার্জন করার জন্য যাচ্ছেন। সুতরাং এই সংক্রান্ত তথ্য জানা আপনার জন্য অতি জরুরী।

মালয়েশিয়া যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন

মালয়েশিয়া যেতে হলে আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। শুধু মালয়েশিয়ায় নয় অন্যান্য দেশে যেতে হলেও আপনার এই সকল ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হবে। ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হয় এ কারণে আপনার তথ্য এবং আপনার সত্যতা যাচাই এর লক্ষ্যে। চলুন দেখে নেওয়া যাক কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয় মালয়েশিয়া যাওয়ার ক্ষেত্রে।
  1. সর্বপ্রথম আপনার একটি বৈধ পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  2. পাসপোর্টে মেয়াদ থাকতে হবে সর্বনিম্ন ৬ মাস
  3. যেহেতু আপনি কাজ করার জন্য যাচ্ছেন সুতরাং আপনার পাসপোর্ট এর মেয়াদ হতে হবে দুই বছর তাহলে আপনার জন্য ভালো। তবে এর চেয়ে কম হলেও সমস্যা নেই
  4. ব্যাংক স্টেটমেন্ট।
  5. অবশ্যই ব্যাংক স্টেটমেন্টটি শেষ ছয় মাসের হতে হবে।
  6. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  7. এনআইডি কার্ড।
  8. জন্ম নিবন্ধন কার্ড।
  9. করোনার টিকা কার্ড।
  10. সদ্য তোলা ছবি। অবশ্যই ছবিগুলো রঙিন হতে হবে।


বাঙালিরা মালয়েশিয়াতে কি কি কাজ করেন

বাঙালিরা মালয়েশিয়া গিয়ে অনেক রকমের কাজ করে থাকেন। বিভিন্ন কোম্পানিতে বিভিন্ন রকম কাজ করেন। বাঙালিরা মালয়েশিয়ায় যে সকল কাজগুলো করেন তা নিম্নে উল্লেখ করা হলো।
  • ইলেকট্রিশিয়ান
  • ক্লিনার
  • ড্রাইভার
  • মেকানিক্যাল
  • গার্মেন্টস
  • ফ্যাক্টরি ইত্যাদি
এই কাজগুলো ছাড়াও আরো অনেক ধরনের কাজ করে থাকেন। বিভিন্ন কাজের উপর নির্ভর করে তাদের বেতন নির্ধারণ করা হয়। আপনারা যারা যে কাজে অভিজ্ঞ তারা সেই কাজের জন্য মালয়েশিয়া আসতে পারেন। তাহলে আপনাদের বেতন অন্যদের তুলনায় বেশি পাবেন। কারণ সব জায়গায় অভিজ্ঞতা দাম থাকে।

মালয়েশিয়াতে কি ওভারটাইম কাজের সুযোগ আছে

মালয়েশিয়াতে ওভারটাইম কাজ করার সুযোগ সুবিধা রয়েছে। আপনি আপনার নির্দিষ্ট সময়ের কাজটি করে পরবর্তী যে সকল কাজগুলো করবেন তার সবকিছুই ওভারটাইম অনেক গণ্য হবে। যেমন, মালয়েশিয়া তে বেসিক কাজ ৮ ঘন্টা। এই আট ঘন্টার পরে যত সময় বা যত ঘন্টা কাজ করবেন তা সবগুলোই ওভারটাইম।

আর ওভারটাইম কাজ করার জন্য আপনাকে মূল বেতনের পাশাপাশি এক্সট্রা বেতন দেওয়া হবে। যে কারণে মূলত অনেকেই জিজ্ঞেস করে থাকেন মালয়েশিয়া তে ওভারটাইম আছে কিনা। যদি ওভারটাইম না থাকে তবে আপনি শুধুমাত্র বেসিক বেতন পাবেন। কিন্তু যদি ওভারটাইম থাকে তাহলে আপনি বেসিক বেতনের পাশাপাশি এক্সট্রা বেতন পাবেন যে কারণেই মূলত আপনারা এ সম্পর্কে জানতে চান।


মালয়েশিয়াতে কত ঘন্টা কাজ করতে হয়

মালয়েশিয়াতে একজন শ্রমিককে সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করতে হয়। প্রতিদিন সর্বনিম্ন ৮ ঘণ্টা করে কাজ করতে হয়। এই আট ঘন্টা বেসিক সময়। এর চেয়ে কম সময় কাজ করতে পারবে না একজন শ্রমিক। তবে এর চেয়ে বেশি কাজ করতে পারবে। আর যতটুকু বেশি কাজ করবে তার ওভারটাইম এর মধ্যে পড়ে।

আপনি ওভারটাইম কাজ করে ও বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারেন। মালয়েশিয়াতে বিভিন্ন কোম্পানিতে ওভারটাইম কাজ করার সুযোগ সুবিধা থাকে। তবে সর্বনিম্ন আট ঘন্টা কাজ করতে হবে। এটা তাদের কাজ করার জন্য নির্ধারিত সময়।

মালয়েশিয়া টাকার মান কত

মালয়েশিয়া মুদ্রার নাম রিংগিত। বাংলাদেশের মুদ্রার চেয়ে মালয়েশিয়ার মুদ্রার দাম বেশি। বাংলাদেশের ২৩ টাকা সমান মালেশিয়ার ১ রিঙ্গিত। এ থেকে আমরা বুঝতে পারছি মালয়েশিয়ার মুদ্রার মূল্য বেশি। মালয়েশিয়ার ১০০ রিঙ্গিত সমান বাংলাদেশি মুদ্রার প্রায় ২৩৪৫ টাকা

তবে আপনাদের সকলের জেনে রাখা উচিত যে মুদ্রার মান পরিবর্তনশীল। মানে এখন যেমন মালয়েশিয়ার এক রিংগিত সমান বাংলাদেশের ২৩ টাকা। সবসময় এটা নাও হতে পারে। সে সময় এক রিঙ্গিত সমান ২২ টাকা অথবা ২৫ টাকা এমন কম বেশি হতে পারে। টাকার মান পরিবর্তনশীল। আপনারা যে কোন সময় যে কোন দেশের মুদ্রার মান গুগল থেকে দেখে নিতে পারবেন।

আরো জানতে ভিজিট করুন

নবীনতর পূর্বতন