জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা যাবার জন্য বাংলাদেশী অনেক শিক্ষার্থী প্রবল আগ্রহে থাকে। এর মূল কারণ হলো দেশীয় শিক্ষার মান অনেকটাই অনুন্নত। দেশের শিক্ষার মান অনন্ত হওয়ার কারণেই মূলত দেশীয় শিক্ষার্থীরা বিদেশে গিয়ে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে চাই। আজকে আর্টিকেলে আপনারা জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। আপনি যদি এই সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তবে আমাদের আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা

বাংলাদেশের যেসব শিক্ষার্থীরা উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে যাই তাদের মধ্যে বেশিরভাগই শিক্ষার্থীর জার্মান দৃষ্টির উপর একটি বিশেষ আকর্ষণ থাকে। তবে সে সকল আকর্ষণ এবং জার্মানির শিক্ষাঙ্গন নিয়ে পুরোটা আলোচনা করব এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে।

এছাড়াও আপনি জার্মানি দেশের ভিসা প্রসেসিং থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পর্যন্ত সকল বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন আমাদের এই আর্টিকেলটি থেকে। তাই আপনি যদি জার্মান ভর্তি ইচ্ছুক একজন শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য আমাদের এই কন্টেন্টটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

জার্মানি পরিচিতি

ভৌগোলিক অবস্থানগত দিক থেকে জার্মান ইউরোপ মহাদেশের অন্তর্গত। এছাড়াও ইউরোপের সেনজেনভুক্ত তালিকায়ক অন্তর্ভুক্ত দেশটি। দেশটির অর্থনৈতিক দিক থেকে বেশ সমৃদ্ধশীল। জার্মানির রাজধানী হল বার্লিন। “ জার্মান ” হল দেশটির প্রধান ভাষা। দেশটির মোট আয়তন ৩ লক্ষ ৫৭ হাজার ১৬৮ কিলোমিটার

এছাড়াও দেশটিতে মোট ১৬ টি রাজ্য রয়েছে। ২০১৫ সালের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী দেশটিতে জনসংখ্যা আছে ৮ কোটি ১৫ লক্ষের মত। এছাড়াও আপনি জানলে অবাক হবেন যে দেশটির মাথাপিছু আয় ৪৮,০০০ মার্কিন ডলার। এছাড়াও জার্মানিতে সাক্ষরতার হার হলো ৯৯%। 

জার্মানিতে কেন পড়াশোনা করবেন

ইউরোপের উন্নত রাষ্ট্র হওয়ার কারণে জার্মানিতে স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার জন্য অনেকেই স্বপ্ন দেখে থাকে। জার্মানিতে পড়াশোনার মান অনেক বেশি উন্নত যে কারণে আপনি এখানে পড়াশোনা করতে পারেন। জার্মানিতে পড়াশোনা করে উন্নত জীবন ব্যবস্থা পরিচালনা করা সম্ভব। জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করে আপনার জব পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে

আপনি সেখানে জব পাবেন এবং দেশে এসেও জব করতে পারবেন। আপনি যেখানেই জব করেন না কেন ভালো পরিবার অর্থ আয় করতে পারবেন। নিজের জীবনকে সুন্দরভাবে সাজানোর জন্য এবং উন্নত জীবন যাপন পরিচালনা করার জন্য আপনারা জার্মানিতে পড়াশোনা করতে পারেন। এ সংক্রান্ত আরো তথ্য নিম্নে উল্লেখ করা হলো।


জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা খরচ কত

আপনি যদি ভালো স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনি স্কলারশিপ এর মাধ্যমে খুবই স্বল্প টাকার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে সরকারি ভাবে জার্মানি যেতে পারেন। বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর বিভিন্ন দেশে স্কলারশিপের মাধ্যমে বিভিন্ন ছাত্র-ছাত্রী যেয়ে থাকেন। আর আপনি যদি স্কলারশিপের মাধ্যমে না যেতে পারেন এমনিতেই পড়াশোনা করতে যেতে চান তবে আপনার খরচ হবে প্রায় আট লক্ষ টাকা। আপনার একাউন্টে প্রায় ১০ লক্ষ টাকার মতো জমা দেখাতে হবে।

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসায় কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা পেতে হলে আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। যে সকল ডকুমেন্টসগুলো আপনার সর্বত্রই প্রয়োজন হয় প্রায়ই। যে সকল ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হবে তা নিম্নে উল্লেখ করা হলো।
  • প্রথমত আপনার একটি বৈধ পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  • আই এল টি এস সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে এবং স্কোর ৬.৫ এর বেশি হতে হবে।
  • একটি কভার লেটার প্রদান করতে হবে।
  • এসএসসি এবং এইচএসসির মার্কশিট এবং সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে।
  • জন্ম নিবন্ধন এবং এনআইডি কার্ড এর প্রয়োজন হবে।
  • রঙিন ছবির প্রয়োজন হবে এবং অবশ্যই ছবিটি সদ্য তোলা হতে হবে
  • করোনার টিকা কার্ড এর প্রয়োজন হবে।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  • মেডিকেল রিপোর্ট।
মূলত এই সকল ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হবে। আরো অন্যান্য ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হলে আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাচ্ছেন বা যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আপনাকে পড়ার সুযোগ প্রদান করেছে সেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আপনারা সকল তথ্য জানতে পারবেন।

জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসার যোগ্যতা

আপনি যদি জার্মানিতে ব্যাচেলর মাস্টার করতে যান তাহলে আপনার বেশ কিছু যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। যে সকল যোগ্যতাগুলো ছাড়া আপনি এখানে শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবেন না। জার্মানিতে অনেকেই ডিপ্লোমা করে থাকেন। তবে জার্মানিতে যেতে হলে স্টুডেন্টদের যে সকল যোগ্যতার প্রয়োজন হবে তা নিম্নে উল্লেখ করা হলো।
  • এসএসসি এবং এইচএসসি সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হবে ব্যাচেলর বা আন্ডার ক্যাজুয়েট ডিগ্রি করার জন্য। অবশ্যই আপনার এসএসসি এবং এইচএসসিতে সর্বনিম্ন ৩.৫ জিপিএ থাকতে হবে।
  • মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য আপনার জিপি এর সর্বনিম্ন ৩ থাকতে হবে।
  • আই এল টি এস স্কোর এর প্রয়োজন হবে। অবশ্যই জার্মানি স্টুডেন্ট ভিসা পেতে হলে আপনার আই এল টি এস স্কোর ৬.৫ থাকতে হবে। যত বেশি থাকবে ততই আপনার ভালো।
  • জার্মানের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রিকমেন্ডেশন লেটার এর প্রয়োজন হবে।
  • ভর্তির জন্য আবেদন পত্রের প্রয়োজন হবে।
  • অবশ্যই বৈধ একটি পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  • পর্যাপ্ত আর্থিক স্বচ্ছলতা রয়েছে এমন প্রমাণ প্রদান করতে হবে।
  • আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়তে যাবেন তারা আপনাকে একসেপ্ট করেছে তার প্রমাণস্বরূপ হিসেবে একটি লেটারের প্রয়োজন হবে।
  • আপনি বাংলাদেশের যেই বিদ্যালয় বা যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন সেখান থেকে কিছু কাগজ পত্রের প্রয়োজন হবে।

আরো জানতে ভিজিট করুন

নবীনতর পূর্বতন