ফিজি কাজের ভিসা

ফিজি কাজের ভিসা

আজকের আর্টিকেলে ফিজি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে আপনাদের মাঝে আলোচনা করব। আমরা অনেকেই রয়েছে যারা বাইরের দেশে কাজ করতে যাবার জন্য আগ্রহী। তাদের জন্যই ফিজি একটি ভালো দেশ হতে পারে। এই দেশে অনেক কাজের চাহিদা রয়েছে।

বর্তমান সময়ে এই দেশে অনেকেই কাজ করেছেন আবার অনেকেই কাজ করতে যাচ্ছেন নতুন নতুন ক্যাটাগরির ভিসা নিয়ে। আজকের আর্টিকেল যদি আপনারা মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে আপনারা ফিজি কাজের ভিসা সংক্রান্ত ছোটখাটো সকল তথ্যগুলো জানতে পারবেন। যে সকল তথ্যগুলো আপনাদের অবশ্যই উপকারে আসবে।

ফিজি কাজের ভিসা

আজকের আর্টিকেলে ফিজি কাজের ভিসা সংক্রান্ত তথ্যগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আজকের আর্টিকেল থেকে যে সকল তথ্যগুলো জানতে পারবেন তা হল। ফিজি যেতে কত টাকা লাগে, ফিজি কিভাবে যাবেন, ফিজি ভিসা প্রসেসিং, ফিজি কাজের ভিসা খরচ কত,

ফিজি যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয়, ফিজি গিয়ে বাঙালিরা কি কি কাজ করেন, ফিজির মুদ্রার মান কেমন, ফিজিতে কত ঘন্টা কাজ করতে হয়, ফিজি যেতে কত ঘন্টা সময় লাগে এছাড়া ও আর অন্যান্য তথ্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। চলুন এই সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ফিজি যেতে কত টাকা লাগে

ফিজি যেতে মূলত খরচ হয় দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকা। ফিজি যেতে সকল খরচ মিলেই এমন টাকা লাগে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সামান্য টাকা বেশি লাগতে পারে যেমন ২ লক্ষ ৭৫ হাজার। অনেক সময় অনেক রকম কারণেই সামান্য টাকা কম অথবা বেশি খরচ হয়ে থাকে। আপনারা যদি বাংলাদেশ থেকে ফিরে যেতে চান তাহলে আপনাদের এমন খরচ হবে।

তবে যাবার পূর্বে অবশ্যই আপনারা আপডেট তথ্যটি নেওয়ার চেষ্টা করবেন। তাহলে কেউ আপনাকে ঠকিয়ে বেশি অর্থ নিতে পারবে না। আপনি যেহেতু ওই দেশে কাজ করে অর্থ উপার্জন করার জন্য যাবেন সুতরাং আপনি বেশি টাকা কখনো খরচ করবেন না। তাই পূর্ব থেকে জেনে নেওয়া উচিত কেমন টাকা খরচ হতে পারে।

ফিজিতে কাজের বেতন কত

ফিজিতে বিভিন্ন রকম কাজ রয়েছে। যে সকল কাজগুলোর জন্য ভিন্ন ভিন্ন বিতন নির্ধারণ করা রয়েছে। প্রথম অবস্থায় আপনি যদি ফিজি গিয়ে কাজ করেন সেক্ষেত্রে আপনি প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা। বিভিন্ন কাজের ক্যাটাগরের উপর নির্ভর করে যেহেতু বেতন কমবেশি হয়ে থাকে সুতরাং আপনি যেই কাজই করেন না কেন প্রথম অবস্থায় আপনি মোট ৫০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।

কিছু কিছু কাজ রয়েছে যে সকল কাজগুলো করে আপনারা সত্তর থেকে আশি হাজার বা ১ লক্ষ টাকার বেশি আয় করতে পারবেন প্রতিমাসে। ড্রাইভিং করে আপনারা সত্তর হাজার এর মত প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন। আরো যে সকল অন্যান্য কাজ রয়েছে প্রতিটি কাজের জন্য বেতন আলাদা আলাদা ভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে। আপনারা যে কাজের জন্য যাবেন অবশ্যই কাজ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে যাবেন।

ফিজি ভিসা প্রসেসিং এর সময়কাল

ফিজি ভিসা প্রসেসিং হতে সময় লাগে প্রায় ১০ থেকে ১৫ কর্মদিবস। অর্থাৎ এক থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে ভিসা প্রসেসিং সম্পন্ন হয়। যদি আপনার ডকুমেন্টস বা অন্যান্য কোথাও সমস্যা থেকে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনার ভিসা প্রসেস হতে সময় লাগবে এক থেকে দুই মাস কারণ পরবর্তীতে আবার ঠিক করতে হবে সঠিক ডকুমেন্টস দিতে হবে তারপরে আবার প্রসেসিং প্রক্রিয়া শুরু হবে।


ফিজি যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে অথবা অন্য কোন দেশ থেকে ফিজিতে যেতে চান তাহলে আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। যে সকল ডকুমেন্টসগুলো ছাড়া আপনি বাংলাদেশ থেকে ফিজিতে কাজ করার জন্য অথবা ভ্রমণ ভিসা নিয়ে অথবা অন্যান্য ক্যাটাগরির ভিসা নিয়ে কোনোভাবেই যেতে পারবেন না।

আবার ডকুমেন্টগুলোর ভুলের কারণে আমরা ভিসা পাই না। তাই আমাদের জানা উচিত কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন ভিসা করার ক্ষেত্রে। তাহলে আমরা এই সকল ভুলগুলো থেকে বিরত থাকবো। নিম্নে উল্লেখ করা হলো ফিজি কাজের ভিসা নিয়ে যেতে কি কি ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হতে পারে সে সম্পর্কে।
  1. প্রথমত আপনার একটি বৈধ পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে। পাসপোর্ট এর মেয়াদ সর্বনিম্ন ৬ মাস থাকতে হবে। আপনি যেহেতু এই দেশটিতে কাজ করার জন্য যাচ্ছেন সুতরাং আপনার পাসপোর্ট এর মেয়াদ এক বছর বা দুই বছর হলে ভালো হয়।
  2. আপনার পাসপোর্ট এর সর্বনিম্ন দুইটি ফাঁকা পৃষ্ঠা থাকতে হবে।
  3. আপনার ভোটার আইডি কার্ড, জন্ম নিবন্ধন এর প্রয়োজন হবে।
  4. সদ্য তোলা রঙিন ছবির প্রয়োজন হবে।
  5. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  6. মেডিকেল রিপোর্ট।
  7. ব্যাংক স্টেটমেন্ট, অবশ্যই ব্যাংক স্টেটমেন্টে শেষ হতে হবে এবং লেনদেন হয় এমন ব্যাংক অ্যাকাউন্টের প্রয়োজন হবে।
  8. করোনার টিকা কার্ড।
  9. এয়ার টিকিট এর প্রয়োজন হবে।

ফিজি গিয়ে বাঙালিরা কি কি কাজ করেন

ফিজিতে গিয়ে বাঙালিরা অনেক ধরনের কাজ করে থাকেন। যে সকল কাজগুলো করেন সে সকল কাজগুলো নিম্নে উল্লেখ করা হলো। আপনি যদি ফিজিতে চান তাহলে আপনাকেও এমন ধরনের কাজগুলোই করতে হবে। আপনারা যাবার পূর্বেই আপনারা জানতে পারবেন কেমন ধরনের কাজ করতে হবে আপনাকে।
  • ইলেকট্রিশিয়ান
  • কনস্ট্রাকশন ম্যানেজার
  • মেকানিক্যাল
  • ড্রাইভিং
  • রেস্টুরেন্ট
  • সেফ
  • ক্লিনার


ফিজিতে কোন কাজগুলো চাহিদা বেশি

ফিজিতে বাঙালিরা গিয়ে অনেক ধরনের কাজ করে থাকেন। তবে সকল কাজের চাহিদা একরকম না। কিছু কিছু কাজ রয়েছে যে সকল কাজগুলো চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে অন্যান্য কাজের তুলনায়। যে সকল কাজগুলো চাহিদা বেশি রয়েছে তা হল।
  1. ড্রাইভিং
  2. মেকানিক্যাল
  3. ইলেকট্রিশিয়ান
  4. ক্লিনার

ফিজি কাজের ভিসা ২০২৩

ফিজির টাকার মান কেমন

ফিজির মুদ্রার নাম ফিজিয়ান ডলার। আর এক ফিজিয়ান ডলার সমান বাংলাদেশের মুদ্রায় প্রায় ৪৮ টাকা। এ থেকে আমরা বুঝতে পারছি ফিজির টাকার মান কেমন। বাংলাদেশের তুলনায় ফিজির মুদ্রার মান অনেক বেশি। আপনারা ফিজিতে গিয়ে কাজ করলে প্রতি মাসে ভালো পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারবেন।

ফিজিতে কত ঘন্টা কাজ করতে হয়

পিজিতে একজন নিয়মিত কর্মীকে প্রতি সপ্তাহে ৪০ ঘন্টা কাজ করতে হয়। অবশ্যই কিছু কিছু সময় সামান্য পরিমাণ বেশিও কাজ করা লাগতে পারে তবুও বেশি কাজ করার ক্ষেত্রে ওভারটাইম হিসেবে অর্থ প্রদান করা হবে। তবে অফিশিয়াল ভাবে প্রতি সপ্তাহে ৪০ ঘন্টা কাজ করতে হয়। অর্থাৎ সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ হয় দুই দিন ছুটি সুতরাং পাঁচ দিনে আট ঘন্টা করে কাজ করতে হয়।

আরো জানতে ভিজিট করুন


FAQ

ফিজি কোন মহাদেশে অবস্থিত

উত্তরঃ- ফিজি ওশেনিয়া মহাদেশে অবস্থিত।

ফিজির রাজধানীর নাম কি

উত্তরঃ- ফিজির রাজধানীর নাম সুভা

ফিজির এক টাকা সমান বাংলাদেশের কয় টাকা

উত্তরঃ- ফিজির এক টাকা সমান বাংলাদেশের ৪৮ টাকা প্রায়।

ফিজির ১০০ টাকা সমান বাংলাদেশের কয় টাকা

উত্তরঃ- ফিজির ১০০ টাকা সমান বাংলাদেশের প্রায় ৪ হাজার ৮০০ টাকা

ফিজির মুদ্রার নাম কি

উত্তরঃ- ফিজির মুদ্রার নাম ফিজিয়ান ডলার

ফিজি কাজের ভিসা খরচ কত

উত্তরঃ- ফিজি কাজের ভিসায় খরচ হয় মূলত দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকা

নবীনতর পূর্বতন