ইতালি কাজের ভিসা

ইতালি কাজের ভিসা | ইতালি যেতে কত টাকা লাগে |

বর্তমানে ইতালিতে কাজ করতে যাবার চাহিদা বাংলাদেশীদের মধ্যে অনেক বেশি রয়েছে। ইতালি ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত একটি দেশ। এই দেশটির মুদ্রার নাম ইউরো। দেশটিতে সংসদীয় গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা চালু রয়েছে। আজকের আলোচ্য বিষয় ইতালির কাজের ভিসা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য নিয়ে।

আপনারা যারা এই দেশটি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী তাদের জন্য আজকের আমাদের এই আর্টিকেল বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এখান থেকে আপনারা ইতালি সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে পারবেন। ইতালি উচ্চ অর্থনীতির দেশ যে কারণে মূলত বাঙালেরা সেখানে কাজ করতে যেতে বেশ আগ্রহী।

সেখানে জীবন যাত্রার মান বেশ উন্নত। এছাড়াও দেশটি বেশ বৈচিত্র্যময়। সেখানে কাজ করে বাঙ্গালীরা প্রতিমাসে ভালো পরিমাণ অর্থ করতে পারে এছাড়াও অনেক রকম সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যে কারণে এ দেশটিতে কাজ করতে যাবার খুবই বেশি আগ্রহ দেখা যায়। চলুন এই দেশটি সম্পর্কে আরো অন্যান্য তথ্যগুলো জেনে নেওয়া যাক।

ইতালি পরিচিতি

ইতালি ইউরোপের একটি দেশ। যেটা ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত একটি দেশ। এ দেশটির আয়তন ৩ লক্ষ ১ হাজার ৩৩৮ বর্গ কিলোমিটার। দেশটিতে জনসংখ্যা রয়েছে ৬ কোটি ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫৪৬ জন। দেশটির মুদ্রার নাম ইউরো। এছাড়াও দেশটির বৃহত্তম শহর এবং রাজধানী রোম। দেশটির প্রধান শহর গুলোর মধ্যে রয়েছে মিলান, ভেনিস, ফ্লোরেন্স, নেপলস ইত্যাদি।

ইতালি সমৃদ্ধ সংস্কৃতির একটি দেশ। আমরা জানি রোমান সাম্রাজ্য ছিল বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সাম্রাজ্য গুলোর মধ্যে একটি। ইতালি শিল্প, স্থাপিত, সাহিত্য, সংগীত এছাড়াও সকল বিষয়ে বিশ্বব্যাপী বিখ্যাত। ইতালি উচ্চ আয়ের একটি দেশ।

ইতালি কাজের ভিসা

বাংলাদেশিরা ইতালিতে কাজ করতে যেতে খুবই বেশি আগ্রহী। বাঙালিরা যে সকল দেশগুলোতে কাজ করতে যাই সেই সকল দেশগুলোর মধ্যে ইতালি প্রথম দিকে রয়েছে। কারণ ইতালিতে বাঙালীরা প্রচুর পরিমাণে কাজ করতে চেয়ে থাকে। আজকের আর্টিকেলটি যেহেতু ইতালি নিয়ে সাজানো হয়েছে সুতরাং আপনারা বেশ গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য এখান থেকে পেয়ে যাবেন।

আপনারা আজকের আর্টিকেল থেকে যে সকল তথ্যগুলো জানতে পারবেন সে সকল তথ্যগুলো আপনাদের সকলেরই জানা উচিত। যেমন, ইতালি যেতে কত টাকা খরচ হতে পারে, ইতালিতে কাজের বেতন কেমন অর্থাৎ আপনি সেখানে প্রতি মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন, ইতালিতে খরচ কেমন হয়, ইতালিতে যেতে হলে কি কি ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হতে পারে এছাড়াও ইতালি সম্পর্কে আরো অন্যান্য তথ্য জানতে পারবেন। তো চলুন এই সকল তথ্যগুলো জেনে নেওয়া যাক।

ইতালি যেতে কত টাকা লাগে

ইতালি যেতে কত টাকা লাগে বা ইতালি যেতে কত টাকা খরচ হয় এটা একটি কমন প্রশ্ন। সকলেই এই সম্পর্কে জানতে চেয়ে থাকেন। আপনারা যারা ইতালিতে কাজ করতে অথবা ঘুরতে অথবা ব্যবসা করতে এছাড়াও অন্যান্য কাজে যেতে চান তাদের সকলেরই এই সম্পর্কে জানা উচিত। তো চলুন জেনে নিন ইতালি যেতে কত টাকা লাগে বা খরচ হয়।

ইতালি যেতে হলে আপনার মোট খরচ হবে ৮ লক্ষ টাকার মতো। তবে আপনি যদি সিজনাল ভিসার মাধ্যমে ইতালি যেতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনার খরচ তিন থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা পড়বে। এজেন্টের মাধ্যমে আপনি ইতালি যেতে চাইলে আপনার খরচ ৮ লক্ষ টাকার মত হবে। বিভিন্ন ক্যাটাগরির ওপর নির্ভর করে ভিসার মূল্য কম বেশি হয়ে থাকে।


ইতালিতে কাজের বেতন কত

ইতালিতে কাজ করে বাঙালিরা কত টাকা বেতন পায় এটা সকলেরই জানা উচিত। আপনি সেখানে কাজ করতে যাবেন সুতরাং আপনি সেখানে গিয়ে কত টাকা আয় করতে পারবেন এটা পূর্ব থেকে জানলে আপনার জন্য বেশ সুবিধা জনক। এটা জেনে রাখা ও ভালো। অনেকেই জানেন না কেমন ধরনের বেতন পাওয়া যেতে পারে। তো চলুন জেনে নিই ইতালিতে কাজ করে আপনি প্রতি মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন।

ইতালিতে কাজ করে আপনারা প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা। এছাড়াও বিভিন্ন কাজের উপর নির্ভর করে আপনার বেতন আরো বেশি বৃদ্ধি পেতে পারে। বিভিন্ন কাজের বেতন বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। আপনি যদি সেখানে রেস্টুরেন্টের কাজ করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনি প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন প্রায় ৮০ হাজার টাকার মত।

এছাড়াও আপনি যদি সেখানে ড্রাইভিং এর কাজ করে থাকেন সে ক্ষেত্রে আপনি ৮০ থেকে ১ লক্ষ বা তারও বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি যদি সেখানে কনস্ট্রাকশনের কাজ করেন সেক্ষেত্রে আপনি প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন প্রায় ৭০ থেকে ৮ হাজার টাকা। এভাবেই বিভিন্ন কাজের বেতন বিভিন্ন রকম হতে পারে। আপনি যে কাজ করতে যাবেন অর্থাৎ যে কাজ করবেন সেখানে গিয়ে সে কাজ সম্পর্কে পূর্বে সকল খোঁজখবর নিয়ে রাখতে পারেন।

ইতালিতে যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয়

ইতালিতে যেতে হলে যে সকল ডকুমেন্ট বা কাগজপত্র গুলোর প্রয়োজন হবে তা অনেকেই জানেন না। তবে এগুলো আমাদের সকলেরই জানা উচিত। কেননা আমি বিদেশে যাব সুতরাং সে দেশে যাওয়ার পূর্বে আমার কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজনীয় হতে পারে সে সম্পর্কে জ্ঞান রাখা জরুরি। যে সকল ডকুমেন্টস গুলো প্রয়োজন হবে।
  1. একটি বৈধ পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে। পাসপোর্ট এর মেয়াদ থাকতে হবে ৬ মাস বা তার বেশি।
  2. সদ্য তোলা ছবি এর প্রয়োজন হবে। অবশ্যই ছবিটি রঙিন হতে হবে।
  3. ছবি তোলার সময় চশমা অর্থাৎ সানগ্লাস অথবা টুপি ব্যবহার করা যাবে না।
  4. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  5. ব্যাংক স্টেটমেন্ট
  6. করোনার টিকা কার্ড
  7. ভোটার আইডি কার্ড অথবা জন্মনিবন্ধন কার্ড
  8. মেডিক্যাল রিপোর্ট
  9. শিক্ষাগত যোগ্যতা সার্টিফিকেট যদি প্রয়োজন হয়
  10. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  11. বি এম ই টি রেজিস্টেশন ইত্যাদি

ইতালিতে কোন কাজের চাহিদা বেশি

ইতালিতে বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে। তবে বাঙালিদের জন্য যে সকল কাজগুলো চাহিদা বেশি রয়েছে সেগুলো নিয়ে নিম্নে আলোচনা করা হলো।
  • ইলেকট্রিশিয়ান
  • ড্রাইভিং
  • মেকানিক্যাল
  • টেলিকমিউনিকেশন
  • ওয়েল্ডার
  • হেলপার
  • অটো মোবাইল মেকানিক
  • জাহাজ নির্মাণ
  • ভবন নির্মাণ
  • কন্সট্রাকশন
  • ক্লিনার ইত্যাদি।



ইতালিতে বাঙালিরা কি ধরনের কাজ করেন

ইতালিতে মূলত বাঙালিরা উপরে উল্লেখিত কাজগুলোই করে থাকেন। যে সকল কাজগুলোর চাহিদা বেশি রয়েছে বাঙালিরা তেমন ধরনের কাজই সেখানে করেন। এছাড়াও আরও অনেক ধরনের কাজ সেখানে করেন। যেমন,
  • বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে কাজ করেন
  • কোম্পানিতে জমি হিসেবে কাজ করেন
  • সেলার হিসেবে কাজ করেন
  • মেকানিক্যাল
  • হেল্পার
  • ড্রাইভিং
  • ইলেকট্রিশন আরো অনেক ধরনের কাজ করে থাকেন।

ইতালির মুদ্রার মান কেমন

আমরা প্রায় সকলেই ইতালি দেশটির নাম শুনে থাকব। আমরা অনেকেই জানিনা ইতালির মুদ্রার নাম কি। আবার ইতালির মুদ্রার মান কেমন। যে কারণে অনেকেই জানতে চান ইতালির মুদ্রার মান সম্পর্কে। ইতালির মুদ্রার মান সম্পর্কে উল্লেখ করা হলো।


ইতালির মুদ্রার নাম ইউরো। বর্তমানে এক ইউরো সমান বাংলাদেশের প্রায় ১১৬ টাকা। এখান থেকে আমরা বুঝতে পারছি যে বাংলাদেশী মুদ্রার চেয়ে ইতালির মুদ্রার মান অনেক বেশি। তবে জেনে রাখা ভালো মুদ্রার মান পরিবর্তনশীল।

এখন ১ ইতালিয়ান মুদ্রার পরিবর্তে ১১৬ টাকা পাওয়া যাচ্ছে। তবে অন্য সময় কম অথবা বেশি টাকা পাওয়া যেতে পারে। কেননা মুদ্রার মান প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হয়ে থাকে। সবসময়ই আপডেট তথ্য গুগল থেকে আপনারা জেনে নিতে পারেন। বর্তমান সময়ে ১১৬ টাকা রয়েছে যে কারণে আমরা এটা উল্লেখ করলাম।

নবীনতর পূর্বতন